এমিলিয়ানো মার্টিনেজ আর্জেন্টিনার জন্য যেন এক আর্শিবাদ।

মার্টিনেজ যেন আর্জেন্টিনার দলে রুপকার গল্প হয়ে আসছেন। এই তো এই দল টা টেনেটুনে ২০১৮ বিশ্বকাপে বাছাইপর্ব কোনো ভাবে পার হয়েছিলো তাও শেষ ম্যাচে শুধু এক মেসির কল্যানে। কারণ ওই ম্যাচ টা হারলে প্লে-ওপ খেলতে হতো আর্জেন্টিনাকে। কিন্তু শুরুতেই গোল খেয়ে বসেছিলো আর্জেন্টিনা।

তারপরেও সেই ম্যাচ টা ৩-১ গোলে জিতে নিয়ে ছিলো আর্জেন্টিনা। সেদিন মেসি একাই করেছিলো তিন গোল। ফুটবল জাদুকর লিওনেল মেসির জন্যই রাশিয়া বিশ্বকাপের সুযোগ পেয়েছিলো আর্জেন্টিনা। কিন্তুু সেই বিশ্বকাপে টেনেটুনে সুযোগ আসলেই বিশ্বকাপে খুব বাজে ভাবে বাদ পরে আর্জেন্টিনা।

image-504034-1641010764.jpg
IMG

গ্রুপ পর্বে ক্রোয়েশিয়ার সাথে হার, আইসল্যান্ডের সাথে ড্র। আবার কোয়ার্টার ফাইনালে ৪-৩ গোলে ফ্রান্সের সাথে হার । সব গুলো ম্যাচেই আর্জেন্টনার গোলবারের দায়িত্ব একদমই কেউ ঠিক পাবে পালন করতে পারেনি। বরং ক্রোয়েশিয়ার সাথে গোলকিপারের জন্যই হেরেছিলো। প্রতিটি ম্যাচেই গোল কিপার ছিলো যেন নিস্ক্রিয়।

২০১৪ বিশ্বকাপে দুর্দান্ত পারফর্ম করা রোমেরোর ইনজুরিতে পরার পর থেকেই আর্জেন্টিনা ভালো গোল কিপারের জন্য ভুগতে ছিলো৷ তখন অনেক গুলো ম্যাচেই আর্জেন্টিনা বাজে গোলকিপারের জন্য হেরেছিলো। কিন্তুু লিওনেল স্কলোনি দায়িত্ব পাওয়ার পর থেকেই আর্জেন্টিনা আসতে আসতে ঘুরে দারাতে শুরু করে। কিন্তু তার পরেও বাজে গোলকিপারের জন্য ম্যাচ জিতলেও গোল হজম করতে হয়েছে প্রায় প্রতি ম্যাচেই।

কিন্তু সেই গোলবারের দায়িত্ব যখন মার্টিনেজের ওপরে পরে তখন থেকেই আর্জেন্টিনা ভক্তদের বুকে নতুন স্বপ্ন দেখা শুরু হয়। সেই মার্টিনেজেই গোলবারের একমাত্র ভরসার প্রতিক এখন। তিনি যেন দুর্বার প্রতিরোধ গড়ে দেন প্রতি ম্যাচেই৷ কোপা আমেরিকার মতো মহাদেশীয় টুর্নামেন্টে অসাধারণ পারফরম্যান্স করে আর্জেন্টিনাকে জিতিয়েছে তাদের ২৮ বছরের শিরোপা খরা।

কোপার সেমিফাইনালে ছিলেন যেন চিনের প্রাচীর হয়ে। পেনাল্টি শ্যুট- আউটে কলম্বিয়ার ৫ শ্যুটের ৩ টি একাই রুখে দেন৷ আর সেই ম্যাচ জিতে আর্জেন্টিনা ফাইনালে ওঠেছিলো৷ তার পর ফাইনালেও ব্রাজিলের সাথে অসাধারণ পারফরম্যান্স করেছিলেন। সেদিনও তিনি যেন চিনের প্রাচীর হয়ে দাড়িয়ে ছিলেন আর্জেন্টিনার গোল বারে।

তবে শুধু তার ক্ষিপ্রতা আর গোলবারের অগাধ প্রতিরোধই না শুধু তার মস্তিষ্কের যে অসাধারণ কারিকুলাম ছিলো সেটা সবাইকে মুগ্ধ করেছিলো। প্রতিপক্ষ খেলোয়াড়দের পেনাল্টি শ্যুট আউটের সময় কথা বলে যেভাবে মনোযোগ নষ্ট করেছিলেন সেটা ছিলো অসাধারণ।

20210707_083734_resize_79.jpg
IMG

সর্বশেষ মার্টিনেজের অভিষেকের পর থেকে কোনো ম্যাচেই হারেনি আর্জেন্টিনা৷ ৩৩ ম্যাচ অপরাজিত থাকার পিছনে ১৭ ম্যাচেই মার্টিনেজ খেলেছিলো আর সেই সব গুলো ম্যাচেই ছিলো মার্টিনেজ অসাধারণ অপ্রতিরোধ্য। যেগুলো ম্যাচে আর্জেন্টিনার জালে গোল জড়িয়েছে সেই ম্যাচ গুলোতে একটির বেশি গোল হজম করেনি আর্জেন্টিনা।

তবে শুধু একজন গোলকিপারের সব অবধান তা নয়। কোচ স্কলোনির অধিনে আর্জেন্টিনা ডিফেন্সে অনেক উন্নতি করেছে। ডিফেন্সের সাথে মার্টিনেজের অসাধারণ পারফরম্যান্সের ফলেই আর্জেন্টিনা এগিয়ে যাচ্ছে বিশ্বকাপ জেতার মিশনে৷ দুর্বার দুর্দান্ত আর্জেন্টিনা এখন স্বপ্ন দেখছে ২০২২ কাতার বিশ্বকাপ জেতার। ভালো গোলকিপারের অভাবে ভুগতে থাকা আর্জেন্টিনা মার্টিনেজ কে পাওয়ার পর থেকে মনে হচ্ছে তারা যেন একটি সোনার হরিন পেল। তাই আজকে মার্টিনেজের ভক্ত শুধু আর্জেন্টিনাতেই নয় সারা পৃথিবীতেই তার কোটি কোটি ভক্ত হয়ে গেছে। যাকে গিরে স্বপ্ন দেখছেন ২০২২ কাতার বিশ্বকাপ ঘরে তুলার।



0
0
0.000
1 comments
avatar

আর্জেন্টিনার বর্তমান গোলকিপারদের তুলনায় এই গোলকিপারটার পারফরম্যান্স ভালো। ব্রাজিলের বিপক্ষে কোপা জয়ের পিছনে তার ছিলো অসামান্য অবদান৷ তবে প্রিমিয়ার লীগে এবারের পারফরম্যান্স ছিলো হতাশাজনক।

0
0
0.000