ব্যাট হাতে ব্যার্থ বিজয়

এবারের ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ কাপানো বিজয়, দুর্দান্ত ফর্মে ছিলেন পুরো প্রিমিয়ার লিগে। কিন্তু জাতীয় দলে ঢুকতেই বদলে গেলো তার পারফরমেন্স। প্রিমিয়ার লিগে সবার নজর কেড়ে নিয়েছিলেন তিনি। বাংলাদেশ টিমের এই করুন পরিস্থিতিতে তার প্রতি নজরটা একটু বেশি ছিল সবার। বাংলাদেশ ক্রিকেট টিমে ভালো কিছু দিবে এটাই ছিল সবার আকাঙ্ক্ষা। কিন্তু সবার প্রত্যাশার সাথে প্রাপ্তির কোনো মিল খুঁজে পাচ্ছে না কেউই। ব্যাট হাতে যেনো এক অন্য বিজয়ের দেখা। এ যেনো পুরো মুদ্রার উল্টো পিঠ। ঘরোয়া লিগে যেমনটা খেলেছেন তার কোনো অংশই দেখা মিলছে না বিজয়ের ব্যাটে।

সাদা জার্সিতে ২ টা ইনিংস খেলার সুযোগ পান তিনি। কিন্তু একটাতেও ভালো রান করতে পারেন নি তিনি। ১ম ইনিংসে ব্যাট হাতে রান করেছেন ২৩ আর ২য় ইনিংসে করেছেন মাত্র ৪ রান। আশা ছিল টি টোয়েন্টি তে তার পারফরমেন্স ফুটিয়ে তুলবেন তিনি। কিন্তু সেটাতেও ব্যাট হাতে ব্যার্থ বিজয়। ৩ ম্যাচের ১ম ম্যাচে করেছেন ১০ বলে ১৬ রান, ২য় ম্যাচে করেছেন ৪ বলে ৩ রান আর ৩য় ম্যাচে করেছেন ১১ বলে ১০ রান।

FB_IMG_1657380199938.jpg
IMG

তবে ২০২২ আসরের ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে দাপটে খেলে গেছেন তিনি। এক আসরে সর্বোচ্চ ১১৩৮ রান করেছেন তিনি। যেটা এর আগে কেউ করে না। ১৫ ম্যাচে ৯ টি হাফ সেঞ্চুরি ও ৩ টি সেঞ্চুরি করেন তিনি। ব্যাট হাতে নিজের মতো করে নিজ ছন্দে খেলে গেছেন তিনি। এমন ফর্মে থাকা ব্যাটসম্যান বাংলাদেশ দলে এসে ভালো খেলবে এটাই সবার আসা। কেনো জানি কেনোভাবেই হাসছে না বিজয়ের ব্যাট।

একের পর এক হার, কোনো ভাবেই জয়ের মুখ দেখতে পারছে না বাংলাদেশ। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্টের পর টি-টোয়েন্টি সিরিজ পরাজয়। শেষ ১৩টি টি-টোয়েন্টি ম্যাচে মাত্র একটিতে জয়ের দেখা পেয়েছে বাংলাদেশ। এটা কোনো ভাবেই ভালো খবর না বাংলাদেশের জন্য। টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের ব্যাটিং দুর্বলতা যেনো নতুন কিছু নয়। টি টোয়েন্টিতে বাংলাদেশের পাওয়ার হিটিংয়ের দুর্বলতা এতো চিরচেনা। কোনো ভাবেই যেনো এর কোনো সমাধান বের হচ্ছে না। লম্বা শর্ট খেলতে ব্যার্থ বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা কিন্তু এদিকে উইস্ট ইন্ডিজের ব্যাটসম্যানরা খুব সহজেই লম্বা শর্ট খেলে যাচ্ছে।

বাংলাদেশ ব্যাটিংয়ের পাশাপাশি বল হাতেও খুব একটা ভালো কিছু করতে পারছে না। বল হাতে হতাশা জনক পারফরমেন্স করছে বাংলাদেশের কাটার মাস্টার মুস্তাফিজ। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টি টোয়েন্টিতে কোনো উইকেটের দেখা পান নি তিনি। রান রেট দিয়েছেন ১০ এর উপরে। এটা সত্যি বাংলাদেশ দলের জন্য দুঃখজনক।

Anamul-Haque.jpg
IMG

এদিকে ঘরোয়া লিগ কাপানো বিজয় জাতীয় দলে এসে কোনো সুবিধা করতে পারছেন না তিনি। টি টোয়েন্টি সিরিজে সর্বনিম্ন রান করেছেন বিজয়। ৩ ম্যাচে তার রান মাত্র ২৯। এটা সবচেয়ে হতাশা জনক। দীর্ঘ দিন পর জাতীয় দলে এসে নিজের জায়গা টাকে পাকাপোক্ত করতে পারছেন না তিনি। ঘরোয়া লীগ আর আন্তর্জাতিক ক্রিকেট খেলার মধ্যে যে আকাশ পাতাল তফাৎ সেটা তিনি আবারও বুঝিয়ে দিলেন। এখন সামনের ম্যাচ গুলোতে ব্যাট হাতে তিনি কেমন পারফর্ম করবেন সেটাই এখন দেখার বিষয়।



0
0
0.000
1 comments