বাংলাদেশ কি পারবে টি-টোয়েন্টি সিরিজ জয় করে নিতে? 🏏

টি টোয়েন্টি ক্রিকেটে বাংলাদেশের এই খারাপ পরিস্থিতিতে অবশেষে জয়ের দেখা পেল বাংলাদেশ। বাংলাদেশ জিম্বাবুয়ে সিরিজে প্রথম ম্যাচ হারের পর দ্বিতীয় ম্যাচে মোটামুটিভাবে ঘুরে দাঁড়িয়েছে বাংলাদেশ। প্রথম ম্যাচে ২০৬ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে ১৭ রানে পরাজিত হয় টিম টাইগার্স।বাংলাদেশ ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে রান করে ১৮৮। হাতে উইকেট থাকা সত্যেও রানরেটে আগাতে পারেনি বাংলাদেশ। এর মূল কারণ ছিলো বাংলাদেশ দলে এখন পাওয়ার হিটার ব্যাটসম্যানের অভাব। টি টোয়েন্টিতে বাংলাদেশ এই পাওয়ার হিটার ব্যাটসম্যানের অভাবে ভুগছে অনেক আগে থেকেই।

Musaddek-1068x712.webp
IMG

আর দ্বিতীয় ম্যাচে বাংলাদেশ টছে হেরে বল করতে নেমে মুছাদ্দেক হোসেন সৈকতের বোলিং দাপটে কেপে ওঠে জিম্বাবুয়ে। ২০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৩৬ রানের টার্গেট দেয় জিম্বাবুয়ে। বল হাতে ক্যারিয়ারের সেরা বল করেন এই ডান হাতি বোলার সৈকত। ৪ ওভারে মাত্র ২০ রান দিয়ে তুলে নেন ৫ উইকেট। ব্যাট হাতে ভালো পারফর্ম করেছেন লিটন দাস, ৩৩ বলে ৫৬ রান করে আউট হন তিনি। এরপর আফিফের ২৮ বলে ৩৩ রান ও শান্তর ২১ বলে ১৯ রান করে অপরাজিত থেকে বাংলাদেশ ৭ উইকেটে জয় লাভ করে। দ্বিতীয় ম্যাচ জিতে সিরিজ পরাজয়ের হাত থেকে রেহায় পেলো বাংলাদেশ। সাথে সাথে সিরিজ জয়ের স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছে বাংলাদেশ। বাংলাদেশ কি পারবে টি টোয়েন্টি সিরিজ টা জিতে নিতে?

টি টোয়েন্টিতে বাংলাদেশ জিম্বাবুয়ের সাথে খেলেছে ১৬ টি ম্যাচ এর মধ্যে ১১টিতে জয়ের দেখা পেয়েছে বাংলাদেশে আর হেরেছে ৫ টি ম্যাচে। আর জিম্বাবুয়ের ঘরের মাটিতে খেলা হয়েছে ৫ টি ম্যাচ বাংলাদেশ জিতেছে ৩ টি ম্যাচ জিম্বাবুয়ে জিতেছে ২ টি ম্যাচ। টি টোয়েন্টিতে জিম্বাবুয়ের থেকে এগিয়ে আছে বাংলাদেশ। কিন্তু বাংলাদেশের এখন টি টোয়েন্টিতে যে বেহাল দশা। এই পরিস্থিতিতে, বাংলাদেশ কি পারবে তৃতীয় ম্যাচটা জিতে টি টোয়েন্টি সিরিজ টা নিজেদের করে নিতে?

জিম্বাবুয়ে বাংলাদেশের থেকে পিছিয়ে থাকলেও খেলা হবে সমানে সমানে। তবে হার্ড হিটার ব্যাটসম্যানের দিক দিয়ে পিছিয়ে থাকবে বাংলাদেশ। বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানরা যেনো টি টোয়েন্টি ফরমেটের সাথে একটু অপরিচিত বলাই চলে। কিন্তু এদিকে এত সুযোগ সুবিধা থেকে বঞ্চিত থাকা জিম্বাবুয়ের খেলোয়াড়রা অনেকটাই ভালো করছে এখন। প্রথম ম্যাচের ২০০+ রান করে জিম্বাবুয়ে। এটা দেখে বলাই যায় তাদের ব্যাটিং লাইনআপ কিছুটা হলেও ভালো। ব্যাটিংয়ে তারা যেকোনো কিছু করতে পারে।

আগামীকাল ২রা আগস্ট বাংলাদেশ জিম্বাবুয়ের টি টোয়েন্টি সিরিজের তৃতীয় নম্বর ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। ম্যাচে থাকছে একটু পরিবর্তন। টি টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক সোহান আঙ্গুলে চোট পাওয়ার কারণে তিন সপ্তাহের জন্য বিশ্রামে থাকবেন তিনি। তার জায়গায় খেলবেন মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ আর অধিনায়কের দায়িত্ব পালন করবে মুছাদ্দেক হোসেন সৈকত। তাই তৃতীয় ম্যাচটা জিততে হলে বাংলাদেশর বোলিং লাইনআপ দিয়ে আটকাতে হবে জিম্বাবুয়ের ব্যাটসম্যানদের। জিম্বাবুয়েকে বোলিং দিয়ে কম রানের মধ্যে থামিয়ে দিতে পারলে বাংলাদেশের কালকের ম্যাচটা জেতা অসম্ভব কিছু না। সেটাই এখন দেখার অপেক্ষা। বাংলাদেশে দলের আগামীকালের ম্যাচের জন্য রইলো শুভ কামনা।



0
0
0.000
2 comments
avatar

জিম্বাবুয়ের বিরুদ্ধে টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশ কখনও সিরিজ হারেনি,দ্বিতীয় ম্যাচের খেলা অনুযায়ী কালও হারবে না মনে হচ্ছে।তবে কি হয় বলা কঠিন,ক্রিকেট হচ্ছে ক্রিপ্টোর মতো,সারাদিনরাত রিচার্স করে যেটা প্রেডিকশন দেওয়া হয়,দেখা যায় তার বিপরীত ঘটে।

0
0
0.000
avatar

জিতবে এটাই আশা করি। কিন্তু টি-টোয়েন্টিতে বাংলাদেশ দলের এখন যে অবস্থা, কি যে হয় বলা কঠিন।

0
0
0.000